Wellcome to National Portal
কারা অধিদপ্তর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
Text size A A A
Color C C C C

সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩১st August ২০২২

প্রিজন্স ইন্টেলিজেন্স ইউনিট

ক্রমিক নং‌

নাম ও পদবী

ছবি

 

০১

 

মোহাম্মদ ইব্রাহীম, ডেপুটি জেলার

 

০২

 

মোঃ পারভেজ মিয়া , কারারক্ষী নং ১২৪৬৪

 

০৩

 

কাজী রিপন , কারারক্ষী নং ১২৭৭৪

 

০৪

 

মোঃ রুবেল ভূঁইয়া, কারারক্ষী নং ১৩২৯১

০৫

মোঃ মাহমুদুল ,কারারক্ষী নং ১৩২৮৩

 

 

০৬

 

উত্তম দত্ত,কারারক্ষী নং ১৩৪২৬

 

০৭

 

মোঃ রুহুল আমিন, কারারক্ষী নং ৪২৫৭২

 

০৮

 

পাপিয়া সুলতানা, মহিলা কারারক্ষী নং-১৩৫৮৭

সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

প্রতিষ্ঠাকালঃ  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের  প্রশাসনিক অনুমোদনক্রমে কারা বিভাগের বিভিন্ন স্তরের অনিয়ম, দুর্নীতি হ্রাস করে সুষ্ঠু কারা প্রশাসন পরিচালনার লক্ষ্যে ২০০৬ সালে ০১ জুন প্রিজন সিকিউরিটি ইউনিট গঠন করা হয়। যা পরবর্তীতে প্রিজন ইন্টেলিজেন্স ইউনিট নামকরণ করা হয়। এর গঠন কারা বিভাগের জন্য একটি বড় পদক্ষেপ।

অবস্থানঃ কারা অফির্সাস মেস এর ১ম তলার একটি কক্ষকে দপ্তর হিসেবে ব্যবহার করে এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

সদস্য নিয়োগ ও প্রশিক্ষণঃ নূন্যতম ৫ বছরের সন্তোষজনক চাকরিকাল ও শিক্ষাগত যোগ্যতাসম্পন্ন (এসএসসি) কারারক্ষীদের মধ্য থেকে নির্বাচন করে কারা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের অধীনে ১ মাসের প্রশিক্ষণ প্রদান করে সদস্য নির্বাচন করা হয়।

জনবল এবং কার্যক্রমঃ কারা উপ মহাপরির্দশক, সদর দপ্তর (অঃ দাঃ প্রিজন ইন্টেলিজেন্স ইউনিট), ঢাকা এর তত্ত্বাবধানে সহকারী কারা মহাপরির্দশক (প্রশাসন এবং অঃ দাঃ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইন্টেলিজেন্স ইউনিট), ০১ (এক) জন ডেপুটি জেলার এবং ০৬ (ছয়) জন কারারক্ষীর ও ০১ (এক) জন মহিলা কারারক্ষীর সমন্বয়ে প্রিজন ইন্টেলিজেন্স ইউনিট, ঢাকা এর দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালিত হচেছ। এছাড়া বর্তমানে ৭৩ জন কারারক্ষীকে গোয়েন্দা প্রশিক্ষণ ও মোটিভেশনের মাধ্যমে প্রশিক্ষিত করে পিআইইউ (প্রিজন ইন্টেলিজেন্স ইউনিট) সদস্য হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিটি কারাগারে নিযুক্ত করা হয়েছে। তারা প্রতিদিন কারাগার হতে বিভিন্ন তথ্য যেমনঃ- অনিয়ম, দূর্ঘটনা, স্পর্শকাতর বিষয়সমূহ দ্রুত সময়ে পিআইইউ দপ্তরে প্রেরণ করেন। প্রিজন ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের সদস্যদের কাছে থেকে প্রাপ্ত তথ্য প্রতিদিন সকালে কারা মহাপরিদর্শকের নিকট উপস্থাপন করা হয়। সকল সম্মিলিত তথ্য যাচাই বাছাই এবং বিশ্লেষণের মাধ্যমে সত্যতা নিরূপনপূর্বক কারা মহাপরিদর্শক প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করে। কারাগারসমূহে দায়িত্বরত পিআইইউ সদস্যদের মাধ্যমে কারা অধিদপ্তরের সকল আদেশ এবং সংস্কারমূলক কর্মকান্ড সঠিকভাবে প্রতিপালিত হচেছ কিনা তাও মনিটর করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠার পর হতে গত ১৪ বছরে এই ইউনিটের সক্রিয় কার্যক্রমের মাধ্যমে কারা বিভাগের বিভিন্ন স্তরের অনিয়ম ও দুর্নীতি অনেকাংশে হ্রাস করা সম্ভব হয়েছে।